লন্ডন । ২৪ ফেব্রুয়ারি। ২০১৯। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন উপলক্ষে ২৪শে ফেব্রুয়ারি রোববার পূর্ব লন্ডনের একটি রেস্তোরায় বিলেত থেকে প্রকাশিত লন্ডন টাইমস নিউজের উদ্যোগে এক সেমিনার, আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন লন্ডন টাইমস নিউজের অন্যতম ডিরেক্টর, সমাজসেবক, ক্যাফে ইটালিয়ার স্বত্বাধিকারি মোহাম্মদ আবদুল হান্নান। সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন টাওয়ার হ্যামলেটস বারার নির্বাহী মেয়র জন বিগস। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন টাওয়ার হ্যামলেটস বারার ডেপুটি মেয়র কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম। সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলর শাহ সোহেল আমিন, কাউন্সিলর ফারুক আহমেদ, সাবেক কাউন্সিলর মামুনুর রশিদ, অনলাইন প্রেস ক্লাবের সভাপতি, কবি সাংবাদিক মুহিত চৌধুরী।

সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য উপস্থাপন করেন লন্ডন টাইমস নিউজের প্রকাশক, সম্পাদক সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ। তিনি অতিথিদের  স্বাগত এবং ধন্যবাদ জানিয়ে সেমিনারের মূল থিম, উদ্দেশ্য এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা নিয়ে পেপার উপস্থাপনের বিষয় অবহিত করেন। এসময় সম্পাদক সেলিম আহমেদ লন্ডন টাইমস নিউজের প্রতিষ্ঠা, সাল, ডিরেক্টরবৃন্দ এবং কোম্পানি পরিচালকদের পরিচিতিও তুলে ধরেন।সেমিনারের শুরুতেই মহান ভাষা শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সেমিনারের মূল পেপার( কী নোট) উপস্থাপনের আগে সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ, ডিরেক্টর জাকির হোসেন জাহাঙ্গীর, ডিরেক্টর মোহাম্মদ হান্নান, ডিরেক্টর আলী রেজা খান, গ্লোবাল মিডিয়া কনসাল্ট্যান্ট মীর আব্দুর রহমান,, ইতালিয়ান ফ্যামিল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা হাজি আবদুর রহিম, সহ-সভাপতি আবুল হোসেন জসিম সেমিনারের প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি, আমন্ত্রিত অতিথিদের লন্ডন টাইমস নিউজের ষ্টেশনারি সামগ্রী, বই উপহার প্রদান করেন।

একই সময়ে প্রধান অতিথি নির্বাহী মেয়র জন বিগস, ডেপুটি মেয়র সিরাজুল ইসলাম, কবি মুহিত চৌধুরী সহ কাউন্সিলরবৃন্দ সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ রচিত দুটি বই আমাদের শেষ ঠিকানা এবং প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম, সদ্য প্রকাশিত নির্বাচিত কলাম গ্রন্থদ্বয়ের মোড়ক উম্মোচন করেন।

 

এর পর সেমিনারের কী নোটের অথর সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ লন্ডন টাইমস নিউজের গ্লোবাল মিডিয়া কনসাল্ট্যান্ট মীর আবদুর রহমান ও স্পেশাল করাসপন্ডেন্ট, ডিরেক্টর সৈয়দ তারিকুল ইসলামকে যৌথভাবে সেমিনারের কী নোট উপস্থাপনের আহবান জানান।  বাংলা ও ইংরেজিতে পাওয়ার পয়েন্টে মাধ্যমে রচিত কী নোট উপস্থাপন শেষে অডিয়েন্স থেকে প্রশ্ন ও আলোচনার আহবান জানানো হয়।

এসময় প্রধান অতিথি জন বিগস ফ্লোর নিয়ে বলেন, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা নিয়ে এই সুন্দর ও প্রানবন্ত সেমিনারে প্রত্যেককেই নিজ নিজ ভাষায় বক্তব্য ও অভিমত উপস্থাপন করতে পারেন এবং প্রথাভেঙ্গে আপনাদের সঙ্গে আপনাদের সকলের বক্তব্য শুনে তারপর আমাদের বক্তব্য উপস্থাপন করবো।এতে হলভর্তি সবাই মেয়রের বক্তব্যকে এবং উদারতাকে শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্বাগত জানান। মেয়র পুরো সেমিনারে অত্যন্ত ধৈর্য ধরে দোভাষীর সহায়তায়  সকলের বক্তব্যের নোট লিখে নেন।

 

কী নোটে টাওয়ার হ্যামলেটস বারার বাংলা স্কুল ও ফান্ডিং অব্যাহত রাখা সহ এই প্রজন্মের ছেলে মেয়েদের কাছে বাংলা ভাষা চর্চা ও অব্যাহত রাখার বেশ কিছু সুপারিশ, দিক নির্দেশনা ও পদ্ধতি তুলে ধরা হয়, যা সুধীজনের দৃষ্ঠি আকর্ষণ করে।

এরপর ফ্লোর নিয়ে একে একে বক্তব্য রাখেন লন্ডন টাইমস নিউজের ম্যানেজারিয়েল এডিটর আনসার আহমেদ উল্লাহ,লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের এবং টিভি নিউজ প্রেজেন্টার নাজমুল হোসাইন, ইসলাম বিভাগের সম্পাদক মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সাদ, উপদেষ্টা মাওলানা মোহাম্মদ আবদুল কুদ্দুছ, জাকির হোসেন জাহাঙ্গীর, মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান, আবুল হোসেন জসীম, আলি রেজা খান, হারুন খন্দকার, আলহাজ্ব আব্দুর রহিম, আলহাজ্ব দেলোয়ার মাতব্বর, শাহাদত হোসেন, হানিফ চৌধুরী, মাকসুদ আলী, ফায়সল আলম, আবুল কালাম আজাদ, সগীর উদ্দিন, শাহা আলম খোকন, ফকির ফায়সাল, ফকির আরিফ হোসেইন, রইস উদ্দিন, টিপু আহমেদ, লুতফুর হোসেন,রাহাত মাহমুদ, বেলাল হসেন, আল মামুন সহ আরো অনেকে। এই পর্যায়ে সেমিনারের আলোচনা পর্বের একাংশ উপস্থাপন করেন কবি সাংবাদিক লন্ডন টাইমসের ডিরেক্টর আলী রেজা খান।

এসময় কাউন্সিলর শাহ সোহেল আমিন এবং লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের ও নিউজ প্রেজেন্টার নাজমুল হোসেইন, অনলাইন প্রেস ক্লাবের সভাপতি কবি মুহিত চৌধুরী, গ্লোবাল মিডিয়া কনসাল্ট্যান্ট মীর আবদুর রহমান ভারতের খ্যাতিমান লেখক গবেষক অধ্যাপক গিয়াসুদ্দিন দালালের এক একুশে কবিতা আবৃত্তি সকলের হ্নদয় ছুয়ে যায়।

 

ডেপুটি মেয়র  সিরাজুল ইসলাম তার বক্তব্যে বাংলা ভাষা চর্চার আদি বৃত্তান্ত তুলে ধরে এই প্রজন্মকে নিজ ভাষায় আকৃষ্ট করতে আমাদের ঘর থেকে, পরিবার থেকে উদ্যোগী ভুমিকা পালনের আহবান জানান। এসময় তিনি লন্ডন টাইমস নিউজের ব্যতিক্রমী এবং সময় উপযোগী এমন উদ্যোগকে অভিনন্দন ও সম্পাদক প্রকাশক সহ সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

কাউন্সিলরবৃন্দ তাদের বক্তব্যে লন্ডন টাইমস নিউজের সংবাদের মান ও তাজা সংবাদের ভুয়সী প্রশংসা সহ এর কার্যক্রম অব্যাহত রাখা সহ সব ধরনের সহযোগিতা ও সাপোর্ট, সেই সাথে ব্রিটেনের মাটিতে ইংরেজি ভাষা সাথে সাথে নিজ ভাষা বাংলা ভাষা এই প্রজন্মের ছেলে মেয়েদের কাছে পৌছে দেয়া ও আত্মস্থ করার লক্ষে প্রেষিতমূলক কার্যক্রমের উদ্যোগকে স্বাগত জানান।

 

প্রধান অতিথি নির্বাহী মেয়র জন বিগস তার বক্তব্যে বাংলা ভাষা সহ বিভিন্ন মাল্টিকালচারাল সোসাইটির ভাষা ও সংস্কৃতি  বিলেতে বিশেষ করে টাওয়ার হ্যামলেটসে অব্যাহত রাখা ও আমাদের প্রজন্মের ছেলে মেয়েদের কাছে তুলে ধরার বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য খোলামেলাভাবে তুলে ধরেন। সেই সাথে কাউন্সিলের দ্বারা ল্যাঙ্গুয়েজ সার্ভিস সহ বাংলা ভাষার বিভিন্ন  দিক ও পর্যালোচনা ও গৃহীত ব্যবস্থার বর্ণনা দেন। এসময় নির্বাহী মেয়র বাংলাদেশ হাই কমিশনের সাথে বাংলা ভাষা লন্ডনে চালু ও অব্যাহত এবং জনপ্রিয় করার জন্য কী কী ব্যবস্থা গ্রহন করা যায়, সে বিষয়েও হাই কমিশনের সাথে মতবিনিময়ের কথা তুলে ধরেছেন। মেয়র জানান, হাই কমিশনকেও আমরা জানিয়েছি আমরাও কিভাবে সহযোগিতা করতে পারি সেব্যাপারে মতবিনিময় করার কথা অবহিত করেন। মেয়র বিগস তার বক্তব্যে আবেগ প্রবণ হয়ে পড়েন এবং বলেন, আমি আপনি প্রত্যেকেই এক একজন পিতা ভাই বন্ধু এবং সবাই দায়িত্বশীল পরিবারের প্রতি। আমি আপনি যদি আমাদের সন্তান এবং পরবর্তী প্রজন্মের প্রতি দায়িত্ববান ও যত্নশীল হই, ইংরেজির পাশাপাশি বাংলা ভাষাকেও শিক্ষা দেই, তবেই কাউন্সিলের সহায়তা ও প্রচেষ্টা কার্যক্রম সফল হবে।

মেয়রের বক্তব্যের পর সেমিনারের সমাপ্তি টানেন সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ। এর পর মহান ভাষা আন্দোলনের শহীদদের মাগফেরাতের জন্য মিলাদ ও দোয়া পরিচালনার দায়িত্ব প্রদান করা হয় বিশিষ্ট রেডিও টিভি প্রেজেন্টার মাওলানা মোহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুছকে। সংক্ষিপ্ত আলোচনা পেশ করেন মাওলানা মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম সাদ। এরপর মাওলানা মোহাম্মদ আবদুল কুদ্দুছ সকল ভাষা শহীদদের স্মরণে মিলাদ ও দোয়া পরিচালন করেন এবং মুসলিম উম্মাহর সুখ শান্তি সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করেন। মোনাজাতে উপস্থিত সকলে সহ মেয়র জন বিগস, ডেপুটি মেয়র সিরাজুল ইসলাম, কাউন্সিরবৃন্দ সহ সবাই অংশগ্রহণ করেন।

 

মিলাদ শেষে লন্ডন টাইমস নিউজের উদ্যোগে আগামী ৩০শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের দাওয়াতে সকলকে আমন্ত্রণ জানানো হয়।সেই সাথে উভয় ফ্লোরে শতাধিক লোকের পরেও রেস্তোরার বাইরে দাঁড়িয়ে দীর্ঘক্ষণ সবাই সেমিনারে ও দোয়ায় অংশ নেয়ার জন্য কৃতজ্ঞতা ও জায়গার স্বল্পতার জন্য অপারগতা প্রকাশ করা হয়।